সাপাহারে স্বামী কর্তৃক গৃহবধুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা, স্বামী আটক

সারোয়ার হোসেন, সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর সাপাহারে শনিবার দিবাগত রাতে উপজেলার বিদ্যানন্দী বাহাপুর গ্রামে নিজ স্ত্রীকে ঘুমের ঘোরে শ্বাস রোধ করে হত্যা করেছে পাষন্ড স্বামী নহজরুল ইসলাম।এ বিষয়ে নিহত গৃহবধুর স্বামীকে আটক করেছে সাপাহার থানা পুলিশ।
সাপাহার থানা সূত্রে জানা গেছে,শনিবার দিবাগত রাতে অন্যান্ন দিনের মতো তাদের সংসারে পারিবারিক কলহের জেরে বাগবিতন্ডা বা ঝগড়া লেগেছিল স্ত্রীকে মুখের ভাষা খারাপ হওয়ায় স্বামী নজরুল ইসলাম ঘুমন্ত অবস্থায় তার স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে পাষন্ড স্বামী।
তবে নিহতের স্বামী নজরুল ইসলাম একসময় ঘটনাটি অন্য দিকে গড়িয়ে দেওয়ার জন্য গৃহবধুর হত্যাকে ডাকাতির ঘটনা বলে নাটক শুরু করে।ঘাতক স্বামী তার স্ত্রীকে হত্যা করার পর এক নাটক শুরু করে। নিজে নিজের মুখে কসটেপ ও হাত পিছনে করে হাত বেধে বাড়ি থেকে বের হয়ে পাশের বাড়ির এক লোকের দরজায় নক করলে পাশের বাড়ির লোক সহ গ্রামের কিছু লোক বেরিয়ে আসে এবং তাকে তার মুখে কসটেপ আটানো ও হাত দু”টি পিছনের দিকে গামছা দিয়ে বাধাঁনো অবস্থায় দেখতে পায়। এসময় তারা তার মুখের টেপ ও বাধঁন খুললে সে তাদেরকে বলে যে আমার বাড়ীতে ডাকাত দল প্রবেশ করেছে, তারা আমার ছেলেকে কুপের মধ্যে ফেলে দিতে চায় আপনারা আমার ছেলেকে বাঁচান বলে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। গ্রামের লোকজন তার বাসায় ছুটে এসে দেখতে পায় যে, বিছানায় তার স্ত্রী (রুমী) (২৫) অচেতন অবস্থায় পড়ে রয়েছে ও সন্তান রাফি (২) ঘুমন্ত অবস্থায় রয়েছে। লোকজন তৎক্ষনাত তাকে ও তার স্বামী নজরুল ইসলামকে সেখান থেকে উদ্ধার করে রাত আড়াইটার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ নিয়ে ভর্তি করে। এসময় কর্তব্যরত চিকিৎসক রুমীকে দেখে মৃত ঘোষনা করেন। কিন্তু তার নাটকটি ধরা পড়ে যায় সে পুলিশের কাছে স্বীকার করেন সে নিজে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে।
এ বিষয়ে সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই নিউটন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন নিহত গৃহবধুর স্বামী ঘাতক নজরুল ইসলাম ডাকাতির নাটক করে বাঁচতে চেয়েছিল তবে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে সে তার স্ত্রীকে নিজ হাতে হত্যা করেছেন বলে স্বীকার করেছে এবং এ বিষয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে।